বুধবার, ২২ মে ২০১৯ ইং, ৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ১৮ রমযান ১৪৪০ হিজরী

You Are Here: Home » আন্তর্জাতিক » লোকসভা নির্বাচনে মমতার প্রার্থী ঘোষণায় চমক

লোকসভা নির্বাচনে মমতার প্রার্থী ঘোষণায় চমক

সংসদ গ্যালারী ডেস্কঃ

সামনেই লোকসভা নির্বাচন। একে কেন্দ্র করে পশ্চিমবঙ্গের বিয়াল্লিশটি আসনে প্রার্থীদের নাম ঘোষণা করেছেন তৃণমূল কংগ্রেস নেত্রী মমতা ব্যানার্জি। গতবারের প্রার্থী তালিকায় যেমন টালিউডের তারকা অভিনেতা দেবকে এনে চমক দিয়েছিলেন এবারও তার ব্যতিক্রম করেননি। বরং অভিনেত্রী মিমি চক্রবর্তী ও নুসরাত জাহানের নাম ঘোষণা করে বলা যাচ্ছে দ্বিগুণ চমকই দিয়েছেন তিনি। আগেরবারের দেব ও শতাব্দী রায় রয়েছেন যথারীতি।

মমতা ব্যানার্জি বারবারই বলেছেন, এ বারের লোকসভা নির্বাচনে পশ্চিমবঙ্গ থেকে বিয়াল্লিশটি আসনে জয়লাভ করাই তার লক্ষ্য। যদিও বিজেপির প্রবল প্রতিদ্বন্দ্বিতার মুখে কতটা সফল হন মমতা তা দেখতে অপেক্ষা করতেই হচ্ছে ২৩ মে পর্যন্ত। ওই দিনই জানা যাবে পুরো ভারত মাসদেড়েকজুড়ে অনুষ্ঠিত হওয়া নির্বাচনের ফলাফল।

নুসরাত নির্বাচনে প্রার্থী হতে পারেন, এমন কথা প্রায় এক বছর ধরেই শোনা যাচ্ছিল। তিনি মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের খুবই প্রিয় পাত্রী। তার ঘনিষ্ঠ বৃত্তে অবশ্য মিমিও রয়েছেন। তবে সরাসরি লোকসভা নির্বাচনের প্রার্থী হিসেবে তাঁর নাম ঘোষণায় অবাক হয়েছেন অনেকেই। মিমি-নুসরাতের ব্যাপারটি জানতেন কি না তা প্রশ্ন করা হলে দেব হাসতে হাসতে জবাব দেন, ‘আমি নিজের খবরটাই জানতাম না, ওদেরটা জানব কী ভাবে?’

নাম ঘোষণায় মিমি-নুসরাতের প্রতিক্রিয়া
লোকসভা নির্বাচনে প্রার্থী হিসেবে নাম ওঠার ব্যাপারে মিমি বলেন? এটা অপ্রত্যাশিত! তবে দিদি যখন আমাকে দায়িত্ব দিয়েছেন, চেষ্টা করব সেটা পালনের। আমি এখন থেকেই তৈরি।

কিন্তু ক্যারিয়ারের কী হবে? এ প্রশ্নের জবাবে মিমি বলেন, সারা জীবন মাল্টিটাস্কিং করে এসেছি। দুটো দিক সামলাতে অসুবিধে হবে না।
অন্যদিকে নুসরাত ফোনে বলেন, শুনে আমিও গিয়েছি। মানিয়ে নিতে সময় লাগবে। তবে মানুষের পাশে থাকতে চাই, মানুষের জন্য কাজ করতে চাই।

এদিকে এ দুজনকে যারা চেনেন, তারা মূল্যায়ন করেন এভাবে, জনসংযোগ, ব্যবহার ও পেশাদারিত্বের প্রশ্নে মিমি অনেক বেশি নম্বর পাবেন। অন্যদিকে নুসরাতও খুব অল্প সময়ে কাউকে আপন করে নিতে পারেন।

ভারতের সপ্তদশ লোকসভা নির্বাচনে ভোটগ্রহণ শুরু হবে আগামী ১১ এপ্রিল। শেষ হবে ১৯ মে। মোট সাত দফায় ভোটগ্রহণ করা হবে। ভোট গণনা হবে আগামী ২৩ মে। গতকাল দিল্লিতে দেশটির প্রধান নির্বাচন কমিশনার সুনীল অরোরা এক সংবাদ সম্মেলনে ওই নির্বাচনের তারিখ ঘোষণা করেন।

প্রথম দফার ভোট শুরু হবে ১১ এপ্রিল। দ্বিতীয় দফার ভোট হবে ১৮ এপ্রিল, তৃতীয় দফা ২৩ এপ্রিল। চতুর্থ দফা ২৯ এপ্রিল, পঞ্চম দফা ৬ মে, ষষ্ঠ দফা ১২ মে এবং সপ্তম দফা ১৯ মে। ভোট গণনা ও ফল ঘোষণা করা হবে ২৩ মে। ভারতের চলতি ষোড়শ লোকসভার মেয়াদ শেষ হচ্ছে আগামী ৩ জুন। বর্তমান লোকসভার মেয়াদ শেষ হয়ে যাচ্ছে চলতি বছরের ৩ জুন। সারা দেশে লোকসভা নির্বাচনের সাথে বিধানসভা নির্বাচন হবে অন্ধপ্রদেশ, ওড়িষা, সিকিম এবং অরুণাচল প্রদেশ এই চারটি রাজ্যেও।

সুনীল অরোরা বলেন, ‘সুষ্ঠুভাবে নির্বাচন পরিচালনা করতে কমিশন বদ্ধপরিকর। ভোটের যাবতীয় প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে। ভারতের সব রাজ্যের নির্বাচনী কর্মকর্তা, মুখ্যসচিব ও পুলিশ কর্মকর্তাদের সাথে কথা হয়েছে। বৈঠক হয়েছে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র সচিবের সাথেও। কেন্দ্র ও রাজ্যের শুল্ক দফতরের সাথে আলোচনা হয়েছে। আবহাওয়া ও বিভিন্ন সম্প্রদায়ের ধর্মীয় উৎসবসহ সব কিছু মাথায় রেখে নির্বাচনী সময়সূচি তৈরি করা হয়েছে।’

ভারতের এবারের লোকসভা নির্বাচনে মোট ৯০ কোটি ভোটার। যার মধ্যে নতুন ভোটার দেড় কোটি।

Tweet about this on TwitterShare on Google+Print this pageShare on LinkedInShare on Tumblr





© 2014 Powered By Sangshadgallery24.com

Scroll to top