বৃহস্পতিবার, ১৮ জুলাই ২০১৯ ইং, ৩ শ্রাবণ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ, ১৬ জিলক্বদ ১৪৪০ হিজরী

You Are Here: Home » ফটো গ্যালারী » বিশ্বকাপ থেকে ভারত বিদায়

বিশ্বকাপ থেকে ভারত বিদায়

স্পোর্টস গ্যালারী ডেস্কঃ

 

ভারতের বিপক্ষে রোমাঞ্চকর এক জয়ে চলমান বিশ্বকাপের ফাইনাল নিশ্চিত করলো নিউজিল্যান্ড। আসরের প্রথম সেমিফাইনালে বিরাট কোহলিদের ১৮ রানের হারায় কেন উইলিয়ামসনবাহিনী। সপ্তম উইকেট জুটিতে ধোনি-জাদেজা স্বপ্ন দেখালেও কিউই বোলারদের দাপটে শেষ পর্যন্ত কান্নার বিদায় নিতে হয় ভারতকে।

১৪ জুলাই ঐতিহাসিক লর্ডসে শিরোপা নির্ধারণী ম্যাচে মাঠে নামবে নিউজিল্যান্ড। প্রতিপক্ষ হিসেবে তারা পাবে অন্য সেমিতে মুখোমুখি হওয়া ইংল্যান্ড ও অস্ট্রেলিয়ার মধ্যকার জয়ী দলকে।

ওল্ড ট্রাফোর্ডে বৃষ্টির কারণে রিজার্ভ ডে’তে গড়ানো ম্যাচটিতে নিউজিল্যান্ডের দেওয়া ২৪০ রানের টার্গেটে ইনিংসের তিন বল বাকি থাকতে ২২১ রানের গুটিয়ে যায় ভারত। এর আগে প্রথম দিন ও পরের দিন অবশিষ্ট ওভারে ৮ উইকেট হারিয়ে ২৩৯ রান করে ‘ব্ল্যাক ক্যাপস’ খ্যাত দলটি।

শেষ চারের ম্যাচে নিউজিল্যান্ডের দেওয়া ২৪০ রানের টার্গেটে খেলতে নেমে প্রতিপক্ষের পেসারদের আগুনে বোলিংয়ে বিপাকেই পড়ে ভারত। চতুর্থ ওভারের মধ্যে দলীয় পাঁচ রানেই তিন উইকেট হারায় দলটি। এসময় টিম ইন্ডিয়া খুইয়েছে রোহিত শর্মা, বিরাট কোহলি ও লোকেশ রাহুলের মতো টপ অর্ডারের তিন ব্যাটসম্যানকে।

পুরো টুর্নামেন্টে দারুণ খেলা রোহিত শর্মা ব্যক্তিগত এক রানে ম্যাট হেনরির বলে বিদায় নেন। দ্বিতীয় ওভারে উইকেটরক্ষক টম ল্যাথামের কাছে ক্যাচ দেন তিনি।

পরের ওভারেই ট্রেন্ট বোল্টের বলে এলবি’র ফাঁদে পড়েন অধিনায়ক কোহলি (১)। আর চতুর্থ ওভারের প্রথম বলে ফের ল্যাথামের ক্যাচ বানিয়ে রাহুলকে (১) বিদায় করেন হেনরি।

পরে দশম ওভারের মধ্যে দলীয় মাত্র ২৪ রানে টপ অর্ডারের ৪ উইকেট হারিয়ে চরম বিপর্যয়ে পড়ে দলটি। ম্যাট হেনরির তৃতীয় শিকার হয়ে মাঠ ছাড়েন দীনেশ কার্তিক (৬)। আর সেট ব্যাটসম্যান হয়েও মিচেল স্যান্টনারের বলে কলিন ডি গ্র্যান্ডহোমকে ক্যাচ দেন ঋষভ পন্থ । ৫৬ বলে ৪টি চারের সাহায্যে ৩২ রান আসে তার ব্যাট থেকে।

হার্দিক পান্ডিয়াকে হারালে ষষ্ঠ উইকেটের পতন হয় ভারতের। মিচেল স্যান্টনারের দ্বিতীয় শিকার পান্ডিয়া কেন উইলিয়ামসনকে ক্যাচ দেন। ৩১তম ওভারে দলীয় ৯২ রানে ও ব্যক্তিগত ৩২ রানে ফেরেন তিনি। ৬২ বলে দুটি চার হাঁকান তিনি।

কিন্তু সপ্তম উইকেট জুটিতেই মূলত ভারতে ম্যাচে ফেরান মহেন্দ্র সিং ধোনি ও রবীন্দ্র জাদেজা। ১১৬ রান তুলে তারা দলকে জয়ের খুব কাছে নিয়ে যান। কিন্তু বিধ্বংসী বোল্টের কাছে জাদেজা হার মানলে ও মার্টিন গাপটিলের দুর্দান্ত থ্রোতে ধোনি রান আউট হলে আশা শেষ হয়ে যায় ভারতের। ১২তম হাফ সেঞ্চুরি করার পর দলীয় সর্বোচ্চ ৭৭ রানে বিদায় নেন জাদেজা। আর ৫৯ বলে ৪টি চার ও সমান ছক্কায় ৭৭ করেন তিনি। আর ধোনি ৭২ বলে ৫০ রান করেন।

নিউজিল্যান্ড বোলারদের মধ্যে দারুণ বল করা ম্যাট হেনরি ১০ ওভারে মাত্র ৩৭ রান দিয়ে ৩টি উইকেট তুলে নেন। ম্যাচ সেরার পুরস্কারও ওঠে তার হাতে। বোল্ট ও স্যান্টনার নেন দুটি করে উইকেট। এছাড়া লকি ফার্গুসন ও জিমি নিশাম একটি করে উইকেট দখল করেন।

এর আগে বৃষ্টির কারণে বিশ্বকাপের প্রথম সেমিফাইনাল স্থগিত হওয়ায় রিজার্ভ ডে’তে ফের মাঠে নামে ভারত ও নিউজিল্যান্ড। তবে অবশিষ্ট ২৩ বলে ব্যাটিং করতে নেমে সুবিধে করতে পারেনি কিউই ব্যাটসম্যানরা। শেষ পর্যন্ত নির্ধারিত ৫০ ওভার শেষে ৮ উইকেট হারিয়ে ২৩৯ করতে পারে দলটি।

মঙ্গলবার (০৯ জুলাই) বিশ্বকাপের শেষ চারের ম্যাচে নিউজিল্যান্ডের ইনিংসের ২৩ বল বাকি থাকতে বৃষ্টি নেমে আসে ম্যানচেস্টারের ওল্ড ট্রাফোর্ড স্টেডিয়ামে। দীর্ঘ অপেক্ষার পরও বৃষ্টি না থামায় বাংলাদেশ সময় ১১.২০ মিনিটে ম্যাচটি রিজার্ভ ডে-তে নিয়ে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেন আম্পয়াররা।

প্রথম দিন বৃষ্টির কারণে প্যাভিলিয়নে ফেরার আগে ৪৬.১ ওভারে ৫ উইকেট হারিয়ে ২১১ রান সংগ্রহ করেছিল নিউজিল্যান্ড। রস টেইলর (৬৭) ও টম ল্যাথাম (০৩) অপরাজিত ছিলেন। তবে দ্বিতীয় দিন ব্যাটিংয়ে নেমে টেইলর আর মাত্র ৭ রান যোগ করেই রান আউট হন। ৯০ বলে ৩টি চার ও একটি ছক্কায় ৭৪ রান করেন তিনি। ল্যাথাম ভুবনেশ্বরের বলে আউট হওয়ার আগে করেন ১০ রান।

ভারতীয় বোলারদের মধ্যে ভুবনেশ্বর সর্বোচ্চ তিনটি উইকেট পান। এছাড়া বুমরাহ, পান্ডিয়া, জাদেজা ও চাহাল একটি করে উইকেট দখল করেন।

এর আগে প্রথম দিন টসে জিতে ব্যাটিংয়ে নেমে শুরুতে ব্যাটিং বিপর্যয়ের মুখে পড়ে নিউজিল্যান্ড। প্রথম ৩.৩ ওভারে মাত্র ১ রানে ১ উইকেট হারিয়ে বসে তারা। ভারতীয় পেসার যশপ্রীত বুমরাহ’র বলে বিরাট কোহলির হাতে সহজ এক ক্যাচ দিয়ে বিদায় নেন কিউই ওপেনার গাপটিল (১)।

এরপর দলকে ৬৯ রানে রেখে ভারতীয় স্পিনার রবীন্দ্র জাদেজার বলে বোল্ড হলে শেষ হয় আরেক ওপেনার হেনরি নিকোলসের ২৮ রানের ইনিংস। দলের বিপদে ফের দাঁড়িয়ে যান কেন উইলিয়ামসন। চলতি বিশ্বকাপের ষষ্ঠ ও প্রথম কিউই ব্যাটসম্যান হিসেবে ৫০০ রানের কীর্তির খাতায় নাম লিখিয়েছেন তিনি। বিশ্বকাপ ইতিহাসে দ্বিতীয় কিউই ব্যাটসম্যান হিসেব এই রেকর্ড গড়েছেন উইলিয়ামসন।

উইলিয়ামসনের আগে ২০১৫ বিশ্বকাপে ৯ ম্যাচে ৫৪৭ রান করেছিলেন গাপটিল। উইলিয়ামসনের রান ৫৪৮। চলতি বিশ্বকাপে কিউই অধিনায়ক ছাড়াও এই মাইলফলক গড়েছেন রোহিত শর্মা, ডেভিড ওয়ার্নার, সাকিব আল হাসান ও অ্যারন ফিঞ্চ।

শুরুতে বিপদে পড়া নিউজিল্যান্ডকে উদ্ধার করেন উইলিয়ামসন ও টেইলরের ব্যাট। দু’জনে করেছেন ৬৫ রানের জুটি। ৯৫ বলে ৬৭ রান করে বিদায় নেন উইলিয়ামসন। জিমি নিশামও (১২) দাঁড়াতে পারেননি বেশিক্ষণ। একই পথে হেঁটেছেন কলিন ডি গ্রান্ডহোম (১৬)।

Tweet about this on TwitterShare on Google+Print this pageShare on LinkedInShare on Tumblr





Leave a Comment

You must be logged in to post a comment.

© 2014 Powered By Sangshadgallery24.com

Scroll to top