শনিবার, ৬ জুন ২০২০ ইং, ২৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ১৫ শাওয়াল ১৪৪১ হিজরী

You Are Here: Home » ফটো গ্যালারী » ঈদে ঘরমুখী হওয়ার প্রবণতা বিপর্যয় তৈরি করতে পারে

ঈদে ঘরমুখী হওয়ার প্রবণতা বিপর্যয় তৈরি করতে পারে

নিউজ ডেস্ক:

করোনা সংক্রমণকালে ঈদে মানুষের ঘরমুখী হওয়ার প্রবণতা বিপর্যয়কর পরিস্থিতি তৈরি করতে পারে বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। ঈদে বাড়ি না গিয়ে যে যেখানে আছে সেখানেই অবস্থান করার আহ্বান জানান তিনি।

মঙ্গলবার (১৯ মে ) সংসদ ভবনের সরকারি বাসভবন থেকে এক ভিডিওবার্তায় ওবায়দুল কাদের এ আহ্বান জানান।

ওবায়দুল কাদের বলেন, আমরা উদ্বেগের সঙ্গে লক্ষ্য করছি করোনা সংকটকালে আসন্ন ঈদুল ফিতর উপলক্ষে মানুষ দলে দলে গ্রামমুখী হয়েছে, যা অত্যন্ত বিপর্যয়কর পরিস্থিতি তৈরি করতে পারে। জেনেশুনে এমন ভয়ানক পরিস্থিতি তৈরি অনাকাঙ্ক্ষিত। এতে নিজেরা যেমন ক্ষতিগ্রস্ত হবো তেমনি আমরা আশপাশের অন্যদের জীবন ও জীবিকায় হুমকি ডেকে আনবো।

‘তাই আবারো অনুরোধ করবো যে যেখানে অবস্থান করছেন সেখানে থাকুনন। ঈদ সেখানে করুন, স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলুন, স্থানান্তর আপাতত বন্ধ রাখুন। সবার সম্মিলিত প্রচেষ্টা ও সহযোগিতায় আমরা এ দুর্যোগ কাটিয়ে উঠবো ইনশাল্লাহ।’

‘আম্পান’ সিডরের চেয়েও বিধ্বংসী হতে পারে বলে সর্তক করে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী বলেন, প্রাণঘাতী করোনার এই সংকটকালে বঙ্গোপসাগরে সৃষ্টি হয়েছে ঘূর্ণিঝড় আম্পান। এই সাইক্লোন বুধবার বিকেল নাগাদ উপকূলীয় জেলাগুলোতে আঘাত হানতে পারে বলে আবহাওয়াবিদরা জানিয়েছে। এটি সিডরের চেয়েও বিধ্বংসী হবে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।

‘প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে ঘূর্ণিঝড়ের সম্ভাব্য আঘাত ও ক্ষয়ক্ষতি থেকে রক্ষায় ইতোমধ্যে প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে। ঘূর্ণিঝড় আশ্রয়কেন্দ্রে সামাজিক দূরত্ব ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে আশ্রয় নেওয়ার নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। সম্ভাব্য ঝুঁকি এড়াতে আশ্রয় গ্রহণকারীদের মাঝে মাস্ক বিতরণের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।’

তিনি বলেন, সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার সুবিধার্থে আশ্রয়কেন্দ্রে চিকিৎসক রাখার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। আমি উপকূলীয় জেলার জনসাধারণকে সাহসের সঙ্গে পরিস্থিতি মোকাবিলার অনুরোধ করছি। পাশাপাশি উপকূলীয় এলাকার আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদেরও মানুষের পাশে দাঁড়ানোর অনুরোধ করছি এবং মানুষকে আশ্রয়কেন্দ্রে পৌঁছে দিতে প্রশাসনকে সহযোগিতার আহ্বান জানাচ্ছি।

করোনা ভাইরাস সংক্রমণ বৃদ্ধি প্রসঙ্গে তিনি বলেন, আমরা সংক্রমণ ও মৃত্যুর হারে লার্জেজ সিঙ্গেল ডে অতিক্রম করছি। দেশে নতুন করে সংক্রমণ ও মৃত্যুর সংখ্যা গতকাল আগের যেকোনো দিনের চেয়ে বেশি। যা নতুন রেকর্ড।

তিনি বলেন, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা আশা প্রকাশ করেছে করোনা সংকট দীর্ঘস্থায়ী হতে পারে। তাই আসন্ন কঠিন সময় মোকাবিলায় আমাদের সবাইকে সমন্বিত ও সর্বাত্মক প্রস্তুতি নেওয়ার বিকল্প নেই।

করোনার নমুনা পরীক্ষা ও চিকিৎসায় বেসরকারি হাসপাতালে উচ্চমূল্য রাখার অভিযোগ প্রসঙ্গে ওবায়দুল কাদের বলেন, এমন সংকটকালে বেসরকারি হাসপাতাল-ক্লিনিক স্বাস্থ্যসেবায় অতি উচ্চমূল্যে চার্জ করছেন বলে গণমাধ্যমে রিপোর্ট প্রকাশিত হয়েছে। আমি ক্লিনিক ও হাসপাতাল মালিকদের জনস্বার্থে চলমান পরিস্থিতি ও মানবিক বিবেচনায় চিকিৎসার নমুনা পরীক্ষা ও খরচ সহনীয় পর্যায়ে রাখার অনুরোধ জানাচ্ছি।

গণমাধ্যম কর্মীদের বেতন পরিশোধের আহ্বান জানিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, ঈদের আগে বিভিন্ন কারখানায় কর্মরত শ্রমিকদের ন্যায্য পাওনা পরিশোধ করার জন্য আমি মালিকদের প্রতি অনুরোধ জানাচ্ছি। পাশাপাশি করোনাজনিত এ সংকটে ফ্রন্টলাইনে যুদ্ধ করছে গণমাধ্যমকর্মীরা। যে সব গণমাধ্যম মালিকরা এখনও সাংবাদিকদের বেতন-ভাতা পরিশোধ করেননি তাদের প্রতি অনুরোধ করছি সাংবাদিকদের বেতন-ভাতা ঈদের আগে পরিশোধ করুন।

Tweet about this on TwitterShare on Google+Print this pageShare on LinkedInShare on Tumblr





© 2014 Powered By Sangshadgallery24.com

Scroll to top