শনিবার, ৮ আগস্ট ২০২০ ইং, ২৪ শ্রাবণ ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ১৯ জিলহজ্জ ১৪৪১ হিজরী

You Are Here: Home » এক্সক্লুসিভ » করোনা রিপোর্ট নিয়ে ধুম্রজাল, লন্ডন যেতে পারলেন না শাজাহান খানের মেয়ে

করোনা রিপোর্ট নিয়ে ধুম্রজাল, লন্ডন যেতে পারলেন না শাজাহান খানের মেয়ে

নিউজ ডেস্কঃ

 

আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য শাজাহান খানের মেয়ে ঐশী খান বিমানবন্দরে করোনা রিপোর্টের হার্ডকপিতে নেগেটিভ দেখালেও অনলাইনে পজিটিভ থাকায় তাকে লন্ডন যেতে দেয়নি বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষ।

রবিবার (২৬ জুলাই) সকালে তাকে বিমানবন্দর থেকে ফেরত পাঠানো হয়। তবে করোনা রিপোর্টের বিষয়ে স্বাস্থ্য অধিদফতরে অভিযোগ করবেন বলে জানিয়েছেন শাজাহান খান।

সাবেক এই নৌপরিবহনমন্ত্রী দাবি করেন, শনিবার (২৫ জুলাই) মহাখালী থেকে নেগেটিভ রিপোর্টের হার্ডকপি নিয়ে আসেন তার বিশেষ সহকারী। কিন্তু ইমিগ্রেশন যখন অনলাইনে চেক করে তখন সেটি পজিটিভ দেখায়। তার রিপোর্ট অনলাইনে এবং হার্ডকপিতে কীভাবে ভিন্ন হলো তা নিয়ে তিনি সোমবার (২৭ জুলাই) স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহাপরিচালক বরাবর অভিযোগ করবেন।

করোনা নেগেটিভ রিপোর্টটিতে স্বাক্ষর করেছেন ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব ল্যাবরেটরি মেডিসিন অ্যান্ড রেফারাল সেন্টারের আবাসিক স্বাস্থ্য কর্মকর্তা (আরএমও) বায়েজিদ বিন মনির। তার সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘অফিস সময় শেষে তিনি ঘটনা শুনেছেন। কালকে সকালের আগে তিনি কিছুই জানাতে পারবেন না।’

ঘটনার বিস্তারিত বিবরণ দিতে গিয়ে শাজাহান খান বলেন, ‘আমার মেয়ে লন্ডনে পড়ালেখা করে। ও ফেব্রুয়ারিতে এসেছে। করোনার কারণে যেতে পারেনি। এখন লন্ডনে যাবে, বিমান চালু হয়েছে। যেহেতু করোনা রিপোর্ট লাগে সেহেতু মহাখালীতে গিয়ে স্যাম্পল দিয়ে আসে। গতকাল চারটার পরে অনলাইনে জানানো হয় তার রিপোর্ট নেগেটিভ। পরে আমার এপিএসকে হার্ডকপিটা আনতে বলি। ডাক্তার বায়জিদ বিন মনির স্বাক্ষরিত নেগেটিভ রিপোর্টটি সে নিয়ে আসে।’

তিনি আরও বলেন, ‘আজ সকালে আমি নিজে মেয়েকে নিয়ে গেছি বিমানবন্দরে। বেলা ১১টার দিকে ইমিগ্রেশনে গেছে। চেক করতে গিয়ে অনলাইনে দেখে করোনা পজিটিভ দেখায়। আমি আকাশ থেকে পড়েছি। পরে আমি নিজে বলেছি যাওয়া অফ করে দাও। এভাবে যাওয়া যাবে না। কারণ, যদি যায়ও লন্ডন থেকে ফিরিয়ে দেবে। আমি ফেরত আসলাম।’

পরবর্তীতে আনা করোনা পজিটিভ রিপোর্ট
পরবর্তীতে আনা করোনা পজিটিভ রিপোর্ট
শাজাহান খান অভিযোগ করে বলেন, ‘বাসায় এসে আমি এই পজিটিভ রিপোর্টটারও হার্ডকপি নিয়ে এসেছি। এখন আমার সামনে পজিটিভ ও নেগেটিভ দুই কপিই রয়েছে। আগামীকাল আমি ডিজি হেলথকে অভিযোগ করবো। এরকম পরিস্থিতিতে কেবল হয়রানি না, আমার সম্মানহানি ঘটেছে। কেননা, তার যাওয়া যে জরুরি তা নয়। এভাবে আমি কেন পাঠাবো?’

Tweet about this on TwitterShare on Google+Print this pageShare on LinkedInShare on Tumblr





Leave a Comment

You must be logged in to post a comment.

© 2014 Powered By Sangshadgallery24.com

Scroll to top