শুক্রবার, ২৭ নভেম্বর ২০২০ ইং, ১৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ১৩ রবিউস-সানি ১৪৪২ হিজরী

You Are Here: Home » অন্যান্য » হাজী সেলিমের বাসায় অভিযান, ছেলে এরফান গ্রেপ্তার

হাজী সেলিমের বাসায় অভিযান, ছেলে এরফান গ্রেপ্তার

নিউজ ডেস্কঃ

নৌবাহিনীর কর্মকর্তাকে মারধর ও হত্যার হুমকির ঘটনায় দায়ের করা মামলায় ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) ৩০নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর ও ঢাকা-৭ আসনের এমপি হাজী সেলিমের ছেলে মোহাম্মদ এরফান সেলিমকে গ্রেপ্তার করেছে র্যাব। এরফান ছাড়াও আরও দু’জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তবে গ্রেপ্তারে বিষয়টি একনও আনুষ্ঠানিক জানায়নি র্যাব।

এর আগে র্যাবের একটি দল হাজি সেলিমের বাসা ঘিরে তল্লাশি শুরু করে। তল্লাশি অভিযান এখনও চলছে। র্যা বের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সারোয়ার আলম এ অভিযানের নেতৃত্ব দিচ্ছেন।

র্যাবের আইন ও গণমাধ্যম শাখার মুখপাত্র লেফটেন্যান্ট কর্নেল আশিক বিল্লাহ ঘটনাস্থলে উপস্থিত সাংবাদিকদের বলেন, শুধু গতকালের ঘটনা নয় সাম্প্রাতিক কিছু বিষয় নিয়ে তাকে জিজ্ঞাসাবাদ ও অভিযান পরিচালনা করা হচ্ছে।

ঘটনাস্থলে ম্যাজিস্ট্রেট কেন এমন প্রশ্নের বিষয়ে তিনি বলেন, কোথায় অভিযান চালাতে গেলে ম্যাজিস্ট্রেটের উপস্থিতিতে করতে হয়। সেজন্য ম্যাজিস্ট্রেট ঘটনাস্থলে এসেছেন। অভিযান শেষে বিস্তারিত জানানো হবে।

রবিবার সকালে ঘটনাস্থল পরিদর্শন শেষে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) রমনা বিভাগের উপ-কমিশনার (ডিসি) সাজ্জাদুর রহমান জানিয়েছিলেন, হাজী সেলিমের ছেলে মোহাম্মদ এরফান সেলিমসহ এজাহারভুক্ত আসামিদের খুঁজছে পুলিশ।

উল্লেখ্য,রবিবার রাতে রাজধানীর ধানমন্ডির কলাবাগান সিগন্যালের পাশে ‘সংসদ সদস্য’ স্টিকার লাগানো একটি গাড়ি থেকে নেমে নৌবাহিনীর লেফটেন্যান্ট মো. ওয়াসিফ আহমেদ খানকে মারধর করা হয়। পরে জনরোষের মধ্যে গাড়িটি ফেলে এর নম্বরপ্লেট ভেঙে চলে যান হাজী সেলিমের ছেলে ও তার বডিগার্ডরা। গাড়ির নম্বর– ঢাকা মেট্টো- ঘ ১১-৫৭৩৬। ওই সময় প্রত্যক্ষদর্শী ও পুলিশ জানিয়েছিলেন, মারধর করা ব্যক্তি হাজী সেলিমের ছেলে ও তার বডিগার্ড। এ ঘটনায় রাতেই ধানমন্ডি থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেন মো. ওয়াসিফ আহমেদ খান। পরে আজ সকালে হাজি সেলিমের ছেলেসহ কয়েকজনকে আসামি করে মামলা করা হয়।

এদিকে, ঘটনার পর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে একটি ভিডিও ছড়িয়ে পড়ে। এতে ওয়াসিফ আহমেদকে রক্তাক্ত দেখা যায়। ভিডিওতে দাবি করা হয়, মারধর করে তার দাঁত ভেঙে ফেলা হয়েছে।

এদিকে, ঘটনার পর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে একটি ভিডিও ছড়িয়ে পড়ে। এতে ওয়াসিফ আহমেদকে রক্তাক্ত দেখা যায়। ভিডিওতে দাবি করা হয়, মারধর করে তার দাঁত ভেঙে ফেলা হয়েছে।

Tweet about this on TwitterShare on Google+Print this pageShare on LinkedInShare on Tumblr





© 2014 Powered By Sangshadgallery24.com

Scroll to top