বৃহস্পতিবার, ২২ এপ্রিল ২০২১ ইং, ৯ বৈশাখ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১১ রমযান ১৪৪২ হিজরী

You Are Here: Home » অন্যান্য » আজ আন্তর্জাতিক নারী দিবস

আজ আন্তর্জাতিক নারী দিবস

নিজস্ব প্রতিবেদক:

আজ ৮ মার্চ আন্তর্জাতিক নারী দিবস। লিঙ্গ সমতার উদ্দেশ্যে বাংলাদেশসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশে এই দিনটি বিশেষ গুরুত্বের সঙ্গে পালন করা হয়। বিশ্বব্যাপী নারীদের প্রতি শ্রদ্ধা, তাদের কাজের প্রশংসা এবং ভালোবাসা প্রকাশের পাশাপাশি অর্থনৈতিক, রাজনৈতিক ও সামাজিক সাফল্য উদযাপনের উদ্দেশ্যে নানা আয়োজনে পালিত হয় এই দিনটি।

১৮৫৭ সালে মজুরি বৈষম্য, নির্দিষ্ট কর্মঘণ্টা আর কাজের অমানবিক পরিবেশের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানাতে প্রথমবারের মতো মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কের রাস্তায় নামেন সুতা কারখানার নারী শ্রমিকরা। সেই মিছিলে চলে সরকারি বাহিনীর দমন-পীড়ন। পরে ১৯০৯ সালের ২৮ ফেব্রুয়ারি নিউইয়র্কের সোশ্যাল ডেমোক্র্যাট নারী সংগঠনের পক্ষ থেকে আয়োজিত নারী সমাবেশে সর্বপ্রথম আন্তর্জাতিক নারী সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। এই সম্মেলনে নেতৃত্ব দেন জার্মান সমাজতান্ত্রিক নেত্রী ক্লারা জেটকিন। ক্লারা জার্মান কমিউনিস্ট পার্টির স্থপতিদের একজন।

এরপর ১৯১০ খ্রিস্টাব্দে ডেনমার্কের কোপেনহেগেনে অনুষ্ঠিত হয় দ্বিতীয় আন্তর্জাতিক নারী সম্মেলন। ১৭টি দেশ থেকে ১০০ জন নারী প্রতিনিধি এতে যোগ দিয়েছিলেন। এ সম্মেলনে ক্লারা প্রতি বছর ৮ মার্চ আন্তর্জাতিক নারী দিবস হিসেবে পালন করার প্রস্তাব দেন। প্রায় অর্ধশতাব্দী ধরে চলা আন্দোলন আর সংগ্রামের ধারাবাহিকতায় ১৯১১ সাল থেকে একটি দিন নারীদের সম-অধিকার দিবস হিসেবে পালিত হয়। পরে ১৯১৪ সাল থেকে বেশকয়েকটি দেশে ৮ মার্চ নারী দিবস হিসেবে পালিত হতে থাকে।

বাংলাদেশেও ১৯৭১ সালে স্বাধীনতা লাভের আগে থেকেই এই দিবসটি পালিত হয়ে আসছে। ১৯৭৫ সালে এসে ৮ মার্চ দিনটিকে আন্তর্জাতিক নারী দিবসের স্বীকৃতি দেয় জাতিসংঘ। সেই থেকে বিশ্বব্যাপী দিবসটি পালিত হয়ে আসছে। এবারের আন্তর্জাতিক নারী দিবসের প্রতিপাদ্য-

করোনাকালে নারী নেতৃত্ব
গড়বে নতুন সমতার বিশ্ব

করোনাভাইরাস অতিমারির কারণে উদ্ভূত চ্যালেঞ্জগুলোকে চিহ্নিত করা হচ্ছে চলতি বছরের আন্তর্জাতিক নারী দিবসে। বিশেষ করে নীতি নির্ধারণ ও সিদ্ধান্ত গ্রহণ প্রক্রিয়ায় নারীরাও যে সমান অংশীদার হতে পারেন, এই থিমের মাধ্যমে তাই বোঝানো হচ্ছে। শুধু তাই নয়, পরিস্থিতির চাহিদা অনুযায়ী, ভবিষ্যতের সমানাধিকার এবং অতিমারি থেকে পুনরুদ্ধারের জন্য নারীদের চেষ্টা সকলের সামনে তুলে ধরাও এই থিমের অন্যতম উদ্দেশ্য। উল্লেখ্য, করোনা অতিমারি নিয়ন্ত্রণে বাংলাদেশসহ বিশ্বের অধিকাংশ নারী নেতৃত্ব তুলনামূলক অধিক সফলতার পরিচয় দিয়েছেন।

এই অতিমারি দেখিয়েছে নারী নেতৃত্ব কতটা ইতিবাচক। করোনা অতিমারির সঙ্গে মানব সভ্যতার যুদ্ধে তারাই অগ্রণী ভূমিকা পালন করেছেন। রাষ্ট্রপ্রধান থেকে শুরু করে বিজ্ঞানী, চিকিৎসক, সেবিকা, গবেষক— সবক্ষেত্রেই তাদের উপস্থিতি পরিস্থিতিকে উন্নত করেছে। তবে কাজে এগিয়ে থাকলেও এখনও পুরুষের তুলনায় অনেক কম বেতন পান নারী। জাতিসংঘ প্রকাশিত একটি রিপোর্ট অনুযায়ী বিশ্বব্যাপী পুরুষ সহকর্মীদের তুলনায় ১১ শতাংশ হারে কম বেতন পাচ্ছেন প্রথমসারির নারী করোনা যোদ্ধারা। যা বেতন কাঠামোর বৈষম্যকেই প্রকাশ করে।

আন্তর্জাতিক নারী দিবসের মধ্য দিয়ে নারীত্বের উৎসব পালিত হয়। জাতি, ধর্ম, ভাষা, সংস্কৃতি, অর্থনৈতিক বা রাজনৈতিক ভেদাভেদ ভুলে নারীদের কৃতিত্বকে স্বীকৃতি জানানোর জন্য এই দিনটি পালিত হয়। এই দিনে প্রত্যেককে নারী অধিকার ও লিঙ্গ সমতা সম্পর্কে সচেতন করে তোলা হয়। পাশাপাশি নারীদের সমান অধিকারের লড়াই জোরদার করা এই দিনটি পালনের অন্যতম উদ্দেশ্য। পারিবারিক বা ব্যক্তিগত কিংবা পেশাগত জীবনে নারীদের যেসব সমস্যা মোকাবিলা করতে হয়, এই দিবস পালনের মধ্য দিয়ে তা যেমন সকলের সামনে তুলে ধরা হয়, তেমনি সচেতনতা বাড়ানোতেও রাখে উল্লেখযোগ্য ভূমিকা।

Tweet about this on TwitterShare on Google+Print this pageShare on LinkedInShare on Tumblr





© 2014 Powered By Sangshadgallery24.com

Scroll to top